বগুড়ার শেরপুরে মাদরাসায় আগুন : কুরআন শরীফসহ ১৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

0

অনলাইন ডেস্ক :: বগুড়ার শেরপুরে একটি কওমী মাদ্রাসায় আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। আগুনে পুড়ে গেছে প্রায় শতাধিক পবিত্র কুরআন শরীফ, বিভিন্ন কেতাব এবং আসবাব পত্র সহ প্রায় ১৫ লাখ টাকার জিনিস পত্র। উপজেলার সীমাবাড়ি ইউনিয়নের নলুয়া গ্রামে  গত ২১ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে।

আগুনে পুড়ে যাওয়া নলুয়া কবরস্থান রজব আলী সেবাতুন নেছা কওমী মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক মাওঃ মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, গত ১৪ ফেব্রুয়ারী দ্বিতীয় সাময়িক পরীক্ষা শেষে ১০ দিনের ছুটি দিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সবাই বাড়ি চলে যায়। আগামী ২৪ ফেব্রয়ারী মাদ্রাসা খোলার কথা ছিল কিন্তু তার আগেই দুর্বৃত্তের আগুনে মাদ্রাসার সব কিছু আগুনে ছাই হয়ে গেছে। মাওঃ মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, ২০০৫ সালে নলুয়া গ্রামের বাসিন্দা রজব আলীর দেয়া জমিতে মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমানে মাদ্রাসাটিতে প্রায় ৬০ জন দরিদ্র শিক্ষার্থী আবাসিকভাকে পড়াশুনা করছে।

তিনি জানান, আগুনে মাদ্রাসার অফিসসহ দুইটি কক্ষ ও রক্ষিত আলমারি, শোকেস, সোভাসেট, মাইক সেট, শতাধিক কোরআন শরীফসহ বিভিন্ন ধর্মীয় বইপুস্তক, দানে পাওয়া ২০মণ ধান-চাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

সীমাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গৌরদাস রায় চৌধুরী জানান, সম্ভবত পেট্রোল বা ডিজেল তেল ব্যবহার করে দুবৃত্তরা মাদ্রাসাটিতে আগুন লাগিয়েছে। তাই মুর্হুতের মধ্যে আগুন সর্বত্র ছড়িয়ে যায়। একপর্যায়ে আগুনের লেলিহান শিখা দেখে স্থানীয় গ্রামবাসী ছুটে এসে দুই ঘন্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, মাদ্রাসার কমিটি ও  নামের সাথে জমি দাতার নাম থাকা নিয়ে বেশ কিছু দিন যাবৎ এলাকার দু’টি পক্ষের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম সরোয়ার জাহান জানান, এই সংবাদ পাওয়ার পরপরই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পাশাপাশি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নিতে পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে এই কর্মকর্তা জানান। শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খান মো. এরফান জানান, ঘটনাটি গুরুত্বের সঙ্গে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্ত পূর্বক জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনুযায়ি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে এই পুলিশ কর্মকর্তা দাবি করেন।

Comment

Share.

Leave A Reply