হিজাব নিষিদ্ধ করার পায়তারা সহ্য করা হবে না : মাওলানা মাহফুজুল হক

0

বরিশালের তুষার কান্দি স্কুলে হিজাব নিষিদ্ধ করার তীব্র প্রতিবাদ করেছেন বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক। তিনি বলেছেন, মুসলমানের দেশে ইসলামি বিধান হিজাব নিষিদ্ধের পায়তারা সহ্য করা হবে না।

গতকাল দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিসের ঢাকাস্থ প্রাক্তন সদস্যদের এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘একজন মুসলিম মেয়ের সাবালক হওয়ার পর ইসলামের শরীয়তের নির্দেশ অনুযায়ি পর্দা পালন করা ফরজ। অথচ বরিশালের একটি স্কুলের হিন্দু প্রধান শিক্ষক তুষার কান্দি স্কুলে ছাত্রীদের হিযাব নিষিদ্ধ করেছে।’

তিনি সরকারের কাছে প্রশ্ন করে বলেন, সংখ্যালঘু প্রধান শিক্ষক এমন দৃষ্টতা পেল কোথা থেকে? অবিলম্বে এ শিক্ষকের চাকুরিচুতিসহ মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের জন্য কঠিন শাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় এদেশের উলামায়ে কেরাম ও ইসলামী নেতৃবৃন্দ জোরালো আন্দোলন গড়ে তুলতে বাধ্য হবে।’

মাওলানা মাহফুজুল হক বলেন, ‘শিক্ষা ব্যবস্থায় ধর্মীয় শিক্ষার অভাব, ভারতীয় ও পশ্চিমা অপসংস্কৃতি চর্চার কারণে নারী পুরুষ পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ছে। স্বামী, স্ত্রী বা সন্তান হত্যার মতো জঘন্যতম ঘটনা অহরহ ঘটছে।’

‘সরকারকে এবিষয়গুলো থেকে শিক্ষা নিয়ে অপসংস্কৃতি নিষিদ্ধ ও শিক্ষা ব্যবস্থার সর্বত্র ধর্মীয় শিক্ষার বাধ্যতামূলক করাসহ অন্যান্য প্রশাসনিক পদক্ষেপ নিতে হবে। অন্যথায় সামাজিক শৃঙ্খলা বিপর্যস্ত হয়ে নৈতিকতার ধস নামবে।’

সভায় তিনি আগামী ২৫ নভেম্বর শনিবার কাজী বশির মিলনায়তনে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের সাধারণ পরিষদের অধিবেশন সফল করার জন্য সাবেক ছাত্র নেতাদের প্রতি আহবান জানান।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় অফিস ও বায়তুলমাল সম্পাদক এবং ছাত্র মজলিসের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা আজিজুর রহমান হেলালের সভাপতিত্বে ও সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা হারুনুর রশীদ ভূইয়ার পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মদ রহমত আলী, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের যুগ্ন-মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ।

উপস্থিত ছিলেন সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা এনামুল হক মূসা, মুফতী নূর মোহাম্মদ আজিজী, মাওলানা আব্দুর রহীম সাঈদ, সেক্রেটারী জেনারেল মুহাম্মদ সাইদুর রহমান সানী, অফিস ও বায়তুলমাল সম্পাদক মুহাম্মদ আতাউল্লাহ, সাবেক সেক্রেটারী জেনারেল ইয়াসিন আরাফাত মিতুল, সাবেক কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা ফারুক আহমদ নোমানী, মাওলানা বায়জিদ আমীন, মাওলানা মিজানুর রহমান, সাবেক কেন্দ্রীয় বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা মীর আহমদুল্লাহ, কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক মাওলানা এহসানুল হক, ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি মাওলানা আব্দুল মুমিন, নোয়াখালী জেলা সভাপতি মাওলানা আবু ইউসুফ মুহাম্মদ নাসির, কুমিল্লা জেলার বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা ছানা উল্লাহ, ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা আমানুল্লাহ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা রশিদ আহমদ, মাওলানা সেলিম রেজা, মাওলানা হোসাইন আহমদ বেলাল প্রমুখ।

Comment

Share.

Leave A Reply