ফুলগুলো ফুটে উঠুক

0

ইবনে সিরাজ ::

পরিচর্যার অভাবে সময়ের অাগেই অনেক ফুল ঝড়ে পরে। ফুটার আগে অংকুরেও ধ্বংস হয় অনেক পুষ্পরেণু। অবহেলা অযতনে সুভাস হারায় অসংখ্য ফুটা ফুল। আবার এর মাঝ থেকে কিছু কিছু ফুল স্বমহিমায় উদ্ভাসিত হয়। গন্ধ ছড়ায়। সুবাস বিলায়। বিমোহিত করে। এসব ফুলের গন্ধ ছড়ানোয়, সুবাস বিলানোয়, বিমোহিত করণে কারো না কারো পরিচর্যা ও সঠিক যতন প্রয়োজন হয়েছে। মোটকথা, পর্যাপ্ত পরিচর্যা পেলেই একটি ফুল তার নামের প্রতি সুবিচার করতে পারে; অন্যথায় নয়।
আমাদের চারপাশে অনেক ফুলের জন্ম হয়েছে। কারো মৃত্যু হয়েছে জন্মেই। কারো একটু বড় হয়ে। কারো মৃত্যু হয়েছে ভরা যৌবনে। অাবার কারো মৃত্যু হয়েছে যথা সময়ে। কেউবা আবার আমৃত্যু সুবাস বিলিয়েছে সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে। তবে সুবাস বিলাতে পারা ফুলের সংখ্যা সর্বকালেই ছিলো হাতেগুণা। কারণ, এ সমাজ ফুলের পরিচর্যা করেনা; বরং ফুটা ফুলকে পিষে চ্যাপ্টা করতে জানে। ফুল গাছের গোড়ায় পানি ঢালেনা; বরং শিকড় উপড়ে ফেলতে লাগে।
বলার কথা হলো, আমাদেরকে এই নষ্ট ধারা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। একটি শিশু আগামি দিনের একজন সংস্কারক, সে একটি ফুলকলির মতো, পরিচর্যা আর মূল্যায়ন পেলেই সবকিছু বিলিয়ে দেবে মন উজাড় করে, হ্রদয় নিংড়ে সমাজ সংস্কার- সমাজ পরিবর্তন -সমাজ গঠনে অবদান রাখবে; সে কথা আমাদের বিশ্বাস রাখা চাই। আমাদের চোখের সামনে ফুলগুলো ঝড়ে গেলে ক্ষতিটা আমাদেরই। কারণ ফুলবিহীন বাগান জায়গা নষ্ট করা ছাড়া আর কিছুই দিতে পারেনা। তেমনি যে শিশু আগামি দিনে সমাজকে আলোকিত করার জন্য নিজেকে তুলে ধরতে পারেনা, সে সমাজের বুঝা হয়ে অতিরিক্ত ঝামেলা ছাড়া এ জাতিকে আর কিছুই দিতে পারবেনা। ফলকথা হলো, আমাদের অযতন আর অবমূল্যায়নে এ সমাজকে আলোকিত করার মানুষ বাকি না থাকলে মূর্খতা, নীতিভ্রষ্টতা আর নগ্নতাসহ সকল প্রকার অন্ধকারে নিমজ্জিত হবে গোটা জাতি। আর তাই,একটি সম্ভাবনাকে ধ্ব্যস করার অর্থ দাঁড়ায়, একটি জাতির ধ্বংস তরান্বিত করা।
এজন্য বলি, যে যেখান থেকে ফুটে উঠতে চায়, তাকে ফুটতে দেয়া হোক। ভারসাম্যহীন চিন্তায় তাদের প্রতিভাকে চেপে ধরা উচিত হবেনা। উৎসাহ-উদ্দিপনায় তার সুপ্ত মেধার বিকাস ঘটুক, তার সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে এ সমাজ ও জাতিকে আলোকিত করা হোক; এটাই হোক সকলের চাওয়া। আমিও চাই, সম্ভাবনার ফুলগুলো ফুটে উঠুকআপন মহিমায়। সুবাস বিলাক সমাজের প্রতিটি রন্ধ্রে রন্ধ্রে।

Comment

Share.

Leave A Reply