গ্রামের মানুষ এখন আর লুঙি পরে না!

0

ফুজায়েল আহমদ নাজমুল : বাংলাদেশ এখন বদলে গেছে। গ্রামের মানুষ এখন আর লুঙ্গি পরে না, জিন্স পরে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

জানিনা সারা দেশের অবস্থা কি? তবে আমার ইউনিয়নে কয়েক হাজার মানুষের বসবাস। ইউনিয়নের অধিকাংশ মানুষ এখনও লুঙ্গি পরে।

জিন্স পেন্ট উন্নয়ন ও সভ্যতার মানদন্ড হতে পারে না। বাংলাদেশের মানুষ তো জিন্স পেন্টের স্বপ্ন দেখে না। মানুষ রাস্তাঘাটের উন্নয়ন চায়। শিক্ষার উন্নয়ন চায়। জানমালের নিরাপত্তা চায়। চাল ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কমমূল্যে পেতে চায়। লুঙ্গি পরে হলেও একটু আরামে ঘুমাতে চায়। পরিবার পরিজন নিয়ে শান্তিতে থাকতে চায়।

হাসান মাহমুদের মতো মন্ত্রীদের কারণেই আজ দেশের সাধারণ মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন নেই। যুগযুগ ধরে তারা শাসনের নামে মানুষকে শোষণ করে চলেছে। আমরা দেখতে পাচ্ছি এই হাসান মাহমুদদের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটেছে রাতারাতি। যাদের একতলা বিল্ডিং ছিল তাদের হয়েছে পাচতলা। আর যাদের পাচতলা ছিল তাদের হয়েছে দশতলা। তারা পরিবার নিয়ে থাকছে রাজধানীর গুলশানে। ছেলে মেয়েদের পড়াশুনার জন্য দেশে নয়, বিদেশে করেছে ঠিকানা। কিনে রেখেছে বিদেশে আলীশান বাড়ী।

অপরদিকে গ্রামের লাল মিয়া তো লাল মিয়াই রয়ে গেছেন। ভাগ্যের চাকা ঘুরেনি তার্। মাটির ঘরে ইট লাগাতে পারছেন না। অভাবের কারণে ছেলে মেয়ের পড়াশুনা গ্রামের স্কুল পর্যন্ত সীমাবদ্ধ রেখেছেন। যৌতুক দিতে পারছেন না বিধায় যুবতী মেয়েকে বিয়ে করাতে পারছেন না। ছেলের বিয়ের বয়স হয়েছে কিন্তু হাউজিং সমস্যার কারণে ছেলেকে বিয়ে করাতে পারছেন না। কোন মতে ছেলে মেয়েকে শিক্ষিত করে তুললেও ঘুষের টাকা রেডি করতে ব্যর্থ হওয়ায় চাকুরী হচ্ছে না।

এভাবে গ্রামে-গঞ্জে হাজারও লাল মিয়া রয়েছেন যারা নিজেদের ভাগ্যের চাকা ঘুরানোর জন্য দিনরাত স্বপ্ন দেখছেন, কিন্তু স্বপ্ন আর বাস্তবায়ন হচ্ছে না। আবার মুক্তিও পাচ্ছেন না ধোকাবাজ হাসান মাহমুদের মতো রাজনীতিবিদদের শোষণের বেড়াজাল থেকে।

Comment

Share.

Leave A Reply