সিলেটে জমিয়তের কর্মী সম্মেলন; আজ সেই মহেন্দ্রক্ষণ!

0

শাহিদ হাতিমী ::

জমিয়ত। এটা কী? সেটা নতুন করে বলার প্রয়োজন আছে কি!? জমিয়তের জন্ম ১৯১৯ ঈসায়ী। একবছর কম ১০০বছর। আমাদের মাঝে চলমান ২০১৮ঈসায়ী। জমিয়ত পেরিয়ে এসেছে অনেক চড়াই উৎরাই। ৯৯বছরে পরিনত বয়সের সমৃদ্ধ এক বটবৃক্ষের নাম জমিয়ত। তার ছায়া বড় সুশীতল। তার আবেদন বড় বিশুদ্ধ। তার চেতনা নিতান্ত পিওর। তার কর্মসূচী সদা কল্যাণকামী। জমিয়ত রাজনৈতিক ময়দানে ইসলামের অতন্দ্র পাহারাদারের নাম। অনেক ঝড় ঝাঞ্জা আসবে, খন্ডখন্ডও হবে, তবুও জমিয়ত ঠিকে থাকবে; কেননা আকাবিরের এ আমানতের শেকড় আছে। রয়েছে সোনালী অতীত এবং গৌরবময় ঐতিহ্য। তাকে ভালোবাসি বোধ হওয়া থেকেই। এক্টিভিটিস কমে যেতে পারে- কিন্তু ভালোবাসবো অনন্ত দিনান্তর।

আজ ২৪ফেব্রুয়ারী শনিবার। জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সিলেট বিভাগীয় কর্মী সম্মেলন। হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার, সুনামগঞ্জ ও সিলেট; এ চারটি জেলা মিলে সিলেট বিভাগ। পুরো বিভাগ উকাব ধ্বনিতে মুখরিত। সাদাকালোয় সজ্জিত আলিয়া মাঠ। আজকের এ সম্মেলনে প্রধান অতিথি জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সভাপতি, খলীফায়ে মাদানী আল্লামা আব্দুল মোমিন শায়খে ইমামবাড়ী। প্রধান বক্তা জমিয়ত মহাসচিব আল্লামা নূর হোছাইন কাসেমী। আজকের এ আয়োজন উদ্বোধন করবেন বিভাগীয় কর্মী সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির সমন্বয়ক, হবিগঞ্জ জেলা জমিয়ত সভাপতি আল্লামা তাফাজ্জুল হক। আহবায়ক মাওলানা শায়খ জিয়া উদ্দীন, যুগ্ম আহবায়ক মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরী, সদস্য সচিব মাওলানা শায়খ আব্দুল বছির।

স্বাধীনতা উত্তর সিলেট বিভাগের কোথাও বিশালাকারে এমন সম্মেলন এই প্রথম! আজকের এ সম্মেলন সফল হোক। হোক সার্থক। গতিশীল কাজে ইসলামী রাজনীতিতে জমিয়ত এগিয়ে যাক তার সমহিমায়। এমন আয়োজন কর্মীদের উজ্জিবীত করে। নেতাদেরও সজিব করে। দূরে যাওয়া, ঝরে পড়া, নিরব থাকা বিপুল নেতাকর্মী আছে; আমরা এ সম্মেলনকে ঘিরে তাদেরকে কাছে টানতে পারতাম! কিন্তু সেটা কতটুকু করতে পেরেছি আমার অজানা। সম্মেলনে নতুন কোন রতি মহারতী জমিয়তে যোগদান করলে এটার গুরুত্ব অনেক বেড়ে যেতো! তবুও জয় হোক।

লেখক : কেন্দ্রীয় সদস্য ও সহ-সভাপতি- ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ সিলেট মহানগর।

Comment

Share.

Leave A Reply