কিশোরগঞ্জে ৬ স্কুল ছাত্রকে গাছে বেঁধে আ’লীগ নেতার নির্যাতন

0

কিশোরগঞ্জে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশের লটকনগাছ থেকে লটকন চুরির অভিযোগে ছয় স্কুলছাত্রকে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মী আবু হানিফের বিরুদ্ধে এ নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত আবু হানিফকে গ্রেপ্তারের পর বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বুধবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার মারিয়া ইউনিয়নের খিলপাড়া এলাকায় স্কুলছাত্রদের এই নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

নির্যাতনের শিকার শিশুরা হলো খিলপাড়া সাহেদ আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী মো. ইমরান (১১), সজীব মিয়া (১০), মো. আপন (১০), রাকিব মিয়া (১২), হৃদয় (১২) এবং চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী আকাশ (১১)। তাদের সবার বাড়ি খিলপাড়া গ্রামে। তাঁরা কিশোরগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়েছে।

এ ঘটনায় ওই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. জালাল উদ্দিন বাদী হয়ে কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানায় আবু হানিফের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, বুধবার বেলা দেড়টার দিকে টিফিনের ফাঁকে বিদ্যালয়-সংলগ্ন মৃত সাহেদ আলীর ছেলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মী আবু হানিফের বাড়ির গাছ থেকে লটকন পাড়তে যায় ওই ছয় শিক্ষার্থী। লটকন পাড়ার সময় আবু হানিফ তাদের দেখে ফেলেন। পরে বাড়ির উঠানে ডেকে নিয়ে রশি দিয়ে তাঁদের সবার দুই হাত বেঁধে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে জখম করেন তিনি। এ খবর পেয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ অন্য শিক্ষকেরা গিয়ে শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে বিদ্যালয়ে নিয়ে আসেন।

নির্যাতনের শিকার ওই স্কুলছাত্ররা জানায়, আবু হানিফ তাদের রশি দিয়ে পেছন দিক থেকে হাত বেঁধে পিঠে, কাঁধে, হাঁটুতে ও পায়ের গোড়ালিসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে লাঠি দিয়ে মারধর করেন। এ সময় তারা তীব্র ব্যথায় চিৎকার করে এবং ক্ষমা প্রার্থনা করলেও তাদের ছাড়া হয়নি। পরে বিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবদুর রহিম বলেন, তিনি খবর পেয়ে আবু হানিফের বাড়িতে গিয়ে দেখতে পান ছয় শিক্ষার্থীকে বেঁধে মারধর করা হচ্ছে। এ সময় তিনি অন্য শিক্ষকদের নিয়ে শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে থানায় খবর পাঠান।

মামলার বাদী শিক্ষক জালাল উদ্দিন বলেন, ‘শুধু শিশুদের মেরেই ক্ষান্ত হননি আবু হানিফ। তিনি বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এসে শিক্ষকদের এ ঘটনা কাউকে জানালে তাদের খুন করে ফেলার ও বিদ্যালয়ে তালা লাগিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।’

কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুশামা মো. ইকবাল হায়াত বলেন, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে ছয় শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। ওই দিন ঘটনাস্থল থেকেই অভিযুক্ত আবু হানিফকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে রাতে হানিফের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে আবু হানিফকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Comment

Share.

Leave A Reply