হাদিসে রাসুলের গুরুত্ব অপরিসীম : কুমিল্লায় খতমে বোখারী মাহফিলে আল্লামা বাবুনগরী

0

ইন’আমুল হাসান ফারুকী : হাদীসে রাসুল ইসলামের অবিচ্ছেদ্য অংশ বলে মন্তব্য করেছেন দেশের সর্ববৃহৎ অরাজনৈতিক ধর্মীয় সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব ও হাটহাজারী মাদরাসার সহযোগী পরিচালক শাইখুল হাদীস আল্লামা হাফেজ জুনায়েদ বাবুনগরী।

তিনি আরও বলেন, কুরআন মাজীদ ও রাসুলের সমন্বয়ে মানবজাতির কল্যাণ ও হেদায়াতের শাশ্বত ধর্মের নাম ইসলাম৷ আল্লাহর কালাম পবিত্র কুরআন মাজীদ অতি সংক্ষিপ্ত৷ কুরআনের ব্যখ্যায় হাদীসে রাসুলের গুরুত্ব অপরিসিম৷

গতকাল ৯ এপ্রিল সোমবার কুমিল্লা সদর দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন জামিয়া ইসলামিয়া এমদাদুল উলুম দয়াপুর মাদরাসার খতমে দরসে বোখারী শরীফ ও দুআ মাহফিলে এ সব কথা বলেন তিনি৷

আল্লামা বাবুনগরী বলেন, শুধুমাত্র কুরআন দ্বারা ইসলামের যাবতীয় বিধিবিধান বুঝা সম্ভব নয়৷পবিত্র কুরআন বুঝতে হাদীসের সাহায্য প্রয়োজন৷আম্মাজান আয়শা রাযি. ও হযরত আদী ইবনে হাতেম পবিত্র কুরআনের সংক্ষিপ্ত রূপ বুঝতে হাদীসে রাসুলের সাহায্য গ্রহণ করেছেন৷

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে তথাকথিত আহলে কুরআন নামে একটি ভ্রান্ত দলের আবির্ভাব হয়েছে৷তাদের শ্লোগান হলো যাবতীয় সমস্যার সমাধান একমাত্র আল কুরআন৷অথচ কুরআনের পাশাপাশি হাদীসে রাসুল ছাড়া যাবতীয় সমস্যার সমধান সম্ভব নয়৷

সন্ধা সাতটায় শুরু হওয়া খতমে দরসে বোখারী শরীফে প্রথমে সনদসহ বোখারী শরীফের সর্বশেষ হাদীস পাঠ করা হয়৷ আল্লামা বাবুনগরী পঠিত হাদীসের উপর দীর্ঘ দুই ঘন্টা আলোচনা পেশ করেন৷

সাহাবা যুগ থেকে শুরু করে সর্বযুগে হাদীস সংরক্ষণের ইতিহাস এবং উপমহাদেশসহ বাংলাদেশে দরসে ইলমে হাদীসের ইতিহাস তুলে ধরে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, ৭ শ মতান্তরে ৮ শ হিজরী সনে দিল্লি থেকে আগত শায়েখ শরফুদ্দীন আবু তাওয়ামা রহ এর দ্বারা সর্বপ্রথম ঢাকার সোনারগায়ে দরসে হাদীসের সূচনা হয়৷দুঃখজনক বিষয় বর্তমানে শায়খ শরফুদ্দীন আবু তাওয়ামার সেই হাদীসের দরসগাহ পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে৷

তিনি বলেন এরপর, ১৯০৭ মতান্তরে ৮ ইংরেজি সনে দারুল উলুম হাটহাজারী মাদরাসায় হাদীসের দরস শুরু হয়৷ পরে এরই ধারাবাহিকতায় দেশের বিভিন্ন স্থানে হাদীসের দরস কায়েম হয়৷

আল্লামা বাবুনগরী বোখারী শরীফের গ্রন্থকার ইমাম মুহাম্মাদ ইবনু ইসমাঈল আল বোখারী রহ এর সংক্ষিপ্ত জীবনী,বোখারী শরীফের গ্রহণযোগ্যতা উল্লেখ করে বোখারী শরীফের সর্বশেষ হাদীস এবং সর্বপ্ৰথম হাদীসের সনদ, হাদীস,অধ্যায়, রাবী বা বর্ণণাকারীর সামনজস্যতা তুলে ধরেন এবং দাওরা়য়ে হাদীসের ছাত্রবৃন্দ ও সনদে আগ্রহী ওলামায়ে কেরামকে বোখারী সহ হাদীসের ছয় কিতাবের সনদ বা বিশেষ এজাযত দান করেন৷

দাওরায়ে হাদীসে ছাত্রদের উদ্যশ্যে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, জাতি আজ আপনাদের দিকে চাতক পাখির ন্যায় তাকিয়ে আছে৷ আপনারা দেশ ও জাতীর কল্যাণে মুসলিম উম্মাহর ঈমান রক্ষায় নিবেদিতপ্রাণ হয়ে কাজ করবেন৷ বাতিলের মোকাবেলায় হকের আওয়াজ বুলন্দ রাখবেন৷ এবং বাতিলের সাথে প্রতক্ষ কিংবা পরোক্ষ কোনভাবেই আপোষ করবেন না৷

তিনি আরো বলেন, প্রয়োজন হলে প্রিয় নবীর রক্তমাখা দ্বিন রক্ষার্থে, আল্লাহর জমিনে আল্লাহর বিধান কায়েম করতে নিজের জীবন বাজী রেখে ইসলামের ফরজ বিধান জিহাদ করবেন৷

দরস শেষে দেশ ও জাতীর কল্যাণ কামনা করে দুআ করেন আল্লামা বাবুনগরী৷

দুআয় আফগানিস্তানের কুন্দুজ প্রদেশের আমেরিকা ও তাদের দোসর আফগানী সন্ত্রাসীদের বিমান হামলায় শতাধিক আফগান নিরীহ শিশু-কিশোর হাফেজে কুরআন হত্যার কথা উল্লেখ করে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন আল্লামা বাবুনগরী।

এ সময় পুরো মজলিসে কান্নার রুল পড়ে যায়৷ কান্নাজড়িত কন্ঠে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, হে আল্লাহ হাফেজে কুরআনদের হত্যাকারী বিশ্বসন্ত্রাসী আমেরিকাকে ধ্বংশ করো৷ হাফেজে কুরআনদের শাহাদাতের বিনিময়ে আফগানে ইসলামী হুকুমাত প্রতিষ্ঠা করো৷

এদিকে বিকেল পাঁচটায় আল্লামা বাবুনগরী মাদরাসায় পৌছলে মাদরাসার ছাত্ররা রাস্তার দু’পাশে সারিবদ্ধভাবে দাড়িয়ে আহলান সাহলান মারহাবান বলে আল্লামা বাবুনগরীকে উষ্ণ অভর্থনা জানায়।

এসময় আল্লামা বাবুনগরী গাড়ি থেকে হাত নেড়ে তাদের অভ্যর্থনার জবাব দেন৷

খতমে দরসে বোখারী ও দুআ মাহফিলে আরো উপস্থিত ছিলেন মাদরাসার মহাপরিচালক মাওলানা হাফেজ এমরান, শাইখুল হাদীস মুফতী এনায়েতুল্লাহ কাসেমী,মাদরাসার নির্বাহী পরিচালক মাওলানা ইকবাল হুসাইন প্রমূখ৷

Comment

Share.

Leave A Reply