আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে কোটা সংস্কার আন্দোলন

0

সরকারি চাকরিতে সংরক্ষিত কোটার সংস্কারের দাবিতে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। হাজার হাজার শিক্ষার্থীর এ আন্দোলন থেকে সহিংসতায় আহত হয়েছেন শতাধিক।

রোববার রাজধানীর শাহবাগ থেকে শুরু হওয়া অান্দোলন মুহূর্তের মধ্যে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। দিনের আলোতে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন শুরু হলেও শেষ পর্যন্ত তা ভয়াবহ সহিংসতায় রূপ নেয়। গভীর রাতে মুখোশধারী বহিরাগতরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে ভাঙচুর চালিয়েছে।

বাংলাদেশে সাধারণ শিক্ষার্থীদের কোটা সংস্কারের এ আন্দোলন আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমে জায়গা পেয়েছে। ফরাসি বার্তাসংস্থা এএফপি বলছে, বাংলাদেশে হাজার হাজার শিক্ষার্থী বিক্ষোভ করেছে। দেশটির শীর্ষস্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষে কমপক্ষে একশ জন আহত হওয়ার পর সোমবার তারা অবস্থান ধর্মঘট পালন করছে।

সরকারি চাকরিতে কোটা বৈষম্য সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাবার বুলেট ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করেছে পুলিশ।

ফরাসি এই বার্তাসংস্থা বলছে, প্রায় এক দশকের ক্ষমতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বড় ধরনের আন্দোলনগুলোর একটির মুখোমুখি হয়েছেন।

স্থানীয় পুলিশ এবং গণমাধ্যম বলছে, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল, রংপুর, সিলেট ও সাভারের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করে অবস্থান ধর্মঘট পালন করছে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী আতাউর রহমান বলেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজারের বেশি শিক্ষার্থী আন্দোলনে যোগ দিয়েছেন।

রোববার রাতে শুরু হওয়া সংঘর্ষ সোমবার ভোর রাত পর্যন্ত অব্যাহত ছিল। এতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পুরো রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। সাধারণ শিক্ষার্থীদের এই আন্দোলন দ্রুত দেশটির অন্যান্য শহরে ছড়িয়ে পড়ে।

‘বাংলাদেশে সরকারি চাকরিতে বৈষম্যমূলক কোটা সংস্কারের আন্দোলনে কয়েক ডজন শিক্ষার্থী আহত’ শিরোনামে হংকংভিত্তিক ইংরেজি দৈনিক সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এএফপির বরাত দিয়ে এতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে পুলিশের রাবার বুলেট ও টিয়ারগ্যাসে শতাথিক শিক্ষার্থী আহত হওয়ার খবর দেয়া হয়েছে।

ভারতীয় প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি ‘সংঘর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় রণক্ষেত্র; আহত শতাধিক’ শিরোনামে প্রতিবেদন করেছে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারে সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে পুলিশ রাবার বুলেট, টিয়ার শেল নিক্ষেপ করেছে। এই আন্দোলনে হাজার হাজার শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। রোববার দিনে শুরু হওয়া এ আন্দোলন সোমবার ভোর রাতে সহিংস হয়ে উঠে।

এছাড়াও সিঙ্গাপুরভিত্তিক স্ট্রেইট টাইমস, পাকিস্তানের নিউজউইক পাকিস্তান, ইয়াহু নিউজসহ বিশ্বের প্রভাবশালী বিভিন্ন গণমাধ্যমে বাংলাদেশের সাধারণ শিক্ষার্থীদের কোটা সংস্কার আন্দোলন উঠে এসেছে।

Comment

Share.

Leave A Reply