ইসলামের সুমহান বাণী প্রচারে বাংলা-ইংরেজিতে পারদর্শী হতে হবে : আল্লামা বাবুনগরী

0

ইনআ’মুল হাসান ফারুকী : ভাষা আল্লাহ প্রদত্ত একটি বিশেষ নেয়ামত৷ভাব প্রকাশের জন্য ভাষার উদ্ভব হয়েছে৷মানুষের উচ্চারিত অর্থবহ বহুজনবোধ্য ধ্বনির সমষ্টিকে ভাষা বলে৷ বাংলা আমাদের মাতৃভাষা; মাতৃভাষা বাংলা চর্চা ও পারদর্শিতা অর্জনের মাধ্যমে ইসলামের সুমহান বাণী প্রচার করতে হবে৷

আজ ১০ ই মে বৃহস্পতিবার প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উত্তীর্ণ শিক্ষক দ্বারা দারুল উলুম হাটহাজারী মাদরাসার বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের উদ্যোগে মাসব্যাপী বাংলা ও ইংরেজী ভাষা শিক্ষা কোর্সের উদ্ভোধনী আলোচনায় এ সব কথা বলেন হেফাজত মহাসচিব ও হাটহাজারী মাদরাসার সহযোগী পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী৷

পবিত্র কুরআনের সুরা রূমের ২২ নং আয়াত উল্লেখ করে আল্লামা বাবুনগরী বলেন,ভাষা ও বর্ণের বৈচিত্র্যতা মহান আল্লাহ তায়ালার নিদের্শন৷মহান আল্লাহ তায়ালা প্রত্যেক নবী রাসুলগণকে স্ব-জাতীর ভাষায় পারদর্শি করে প্রেরণ করেছেন৷ নবী-রাসুলগণ সুন্দর-সাবলীল ও মর্মস্পর্শী ভাষার মাধ্যমে নিজ উম্মতদেরকে দ্বীনের পথে আহব্বান করতেন৷

১২০৫ খ্রিষ্টাব্দে মুসলিম সেনাপতি মুহম্মদ বখতিয়ার খিলজি বাংলা দেশে মুসলিম রাজত্ব কায়েমের ফলে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের নবজন্ম ঘটে। মুসলমান শাসক হুসেন শাহ, গৌড়ের সামসুদ্দিন ইউসুফ শাহ এবং অপরাপর মুসলমান সম্রাটেরা বাংলাদেশে বাংলা ভাষাকে সুপ্রতিষ্ঠিত করে আমাদের সাহিত্যে এক নতুন যুগ সৃষ্টি করেছিলেন।

বাংলা ভাষায় যারা অসামান্য অবদান রেখেছেন, তন্মধ্যে মুসলিম মনীষাদের নামও বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

আমাদের পূর্বসূরীগণ বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে অনেক অবদান রেখেছেন যা ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লিপিবদ্ধ রয়েছে৷ সুতরাং বাংলা ভাষা চর্চায় আমাদের আরো এগিয়ে আসতে হবে৷ বিশুদ্ধ বাংলায় কুরআন-হাদীসের সুমহান বাণী প্রচার করতে হবে৷বাংলা ভাষা চর্চার পাশাপাশি সাহিত্যও চর্চা করতে হবে৷গদ্য ও পদ্যে ইসলামের সুন্দর্যতা ফুটিয়ে তুলতে হবে৷

বর্তমান যুগের চাহিদা পুরণে আমাদের আরো সচেষ্ট হতে হবে৷বাংলায় পারদর্শিতা অর্জন করে ইলেক্টিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় ইসলামী সাংবাদিকতায় আমাদের দখল বাড়াতে৷পত্র-পত্রিকায় ইসলামী কলাম লিখতে হবে৷
বর্তমান সময়ের প্রায় সকল মিডিয়া বামপন্থীদের দখলে উল্লেখ করে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, বামপন্থীরা মিডিয়ার মাধ্যমে ইসলামের উপর আঘাত করে, ইসলামের উপর প্রশ্ন উত্থাপন করে৷ ইসলাম ও মুলমানদের বিরুদ্ধে যখন যা ইচ্ছে তাই লিখে৷ সুতরাং আমাদেরকে ইসলামী সাংবাদিকতার মাধ্যমে ইসলামী মিডিয়ার বিপ্লব ঘটাতে হবে

ইংরেজী পড়া দোষের নয় উল্লেখ করে আল্লামা বাবুনগরী বলেন, দ্বীন প্রচারের উদ্যেশ্যে ইংরেজী ভাষা শিক্ষা করায় কোন দোষ নেই৷আমাদের অনেক পূর্বসুরীগণ ইংরেজী জানতেন,ইংরেজী চর্চা করতেন, অর্নগল ইংরেজীতে টকিং করতেন৷ আল্লামা সায়্যেদ আবুল হাসান আলী মিয়া নদভী বলেছেন, ইংরেজী শিখা দোষের নয় বরং ইংরেজ হওয়া দোষনীয়৷

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জামিয়ার বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের প্রধান মাস্টার মুহাম্মাদ জাহিদ হোসাইন, মাওলানা মুহাম্মাদ শফীকুল ইসলাম প্রমূখ ৷

Comment

Share.

Leave A Reply