সহিহ নিয়তের এই ‘পথযাত্রা’ জান্নাতে যাওয়ার সাক্ষী হতে পারে : আল্লামা মাসঊদ

0

সহিহ নিয়তের একটি পথযাত্রাও কিয়ামতের দিন জান্নাতে যাওয়ার জন্য আল্লাহর দরবারে সাক্ষী হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান, শোলাকিয়া ঈদগাহের গ্র্যান্ড ইমাম, শায়খুল হাদীস আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের জমিয়তুল উলামার উদ্যোগে আলেম-জনতা ঐক্য গড়ার আহ্বানে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক পথযাত্রায় অংশ নিতে ঢাকা থেকে শুক্রবার বাদ আসর থেকেই ঢাকা থেকে যাত্রা শুরু হচ্ছে। এই পথযাত্রাটি মূলত ইসলামের আওয়াজকে বুলন্দ করার জন্যে। ইখলাসের সাথে, সহীহ নিয়তে এই পথযাত্রায় শরীক হওয়াটাও কিয়ামতের দিন জান্নাতের যাওয়ার জন্যে সাক্ষী হতে পারে।

আল্লামা মাসউদ বলেন, ধৈর্য ও সহিষ্ণুতার একটি মহত গুণ। রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আ’লাইহি ওয়া সাল্লাম এর ধৈর্য ও সহনশীলতার অবস্থা এমন ছিলো যে, সমস্ত সাহাবায় কেরামদের ধৈর্যও একত্রে তার সমকক্ষ হবে না। কিন্তু এখন আমাদের পরিস্থিতি এমন যে, ধৈর্য ও সহিষ্ণুতা না থাকর কারণে স্বামী-স্ত্রীর সহ্য করতে পারে না। পিতা-মাতা সন্তানকে সহ্য করতে পারে না। সন্তান ও তাদের পিতা-মাতাকে সহ্য করতে পারে না। অথচ ধৈর্য ও সহিষ্ণুতা ইসলাম প্রচার ও ভালোবাসার মাধ্যম।

গত ৫ অক্টোবর শুক্রবার রাজধানীর খিলগাঁও ইকরা বাংলাদেশ কমপ্লেক্স জামে মসজিদে জুমার বয়ানে আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ এসব কথা বলেন।

আল্লামা মাসঊদ বলেন, ইসলাম প্রেম ও ভালোবাসার ধর্ম। ইসলাম মানুষকে ভালোবাসতে শিখায়। রাসূলুল্লাহ্ সাল্লাল্লাহু আ’লাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ইসলামের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে- ‘আল্লাহর জন্যে মানুষকে ভালোবাসা’। আজকে আমাদের সমাজ থেকে ভালাবাসা দূর হয়েছে যাচ্ছে। মানুষ এখন আর মানুষকে ভালোবাসে না, বরং মানুষ এখন মানুষকে আরো ভয় পায়। পরিস্থিতি এখন এমন হয়েছে, পিতা-মাতা তাদের সন্তানকে ভালোবাসে না। সে জন্যে আমাদের শিশুরা এখন প্রেমহীন এ হতাশ মধ্য দিয়ে বড় হচ্ছে। তাই তার মদ ও নেশায় আশ্রয় খুঁজে এখন। অথচ মদ সমস্ত গুনাহের মূল। মদ আমাদের যুব সমাজের ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।

৫ অক্টোবর বাদ আসর থেকে বাংলাদেশের জমিয়তুল উলামার উদ্যোগে আলেম-জনতা ঐক্য গড়ার আহ্বানে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক পথযাত্রা নিয়ে মসজিদে উপস্থিত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন তিনি।

#মাসিক পাথেয়’র সৌজন্যে

Comment

Share.

Leave A Reply