মহাসমাবেশ থেকে ইসলামী আন্দোলনের ১০ দফা দাবি

0

আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে ১০ দফা দাবি জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহাসমাবেশে সভাপতির ভাষণ শেষে এ দাবি তুলে ধরেন তিনি।

শিগগির এসব দাবি বাস্তবায়ন না হলে জেলায় জেলায় বিক্ষোভসহ জেলা প্রশাসক ও রাষ্ট্রপতি বরাবর স্মারকলিপি পেশের কর্মসূচিও ঘোষণা করেন তিনি।

মহাসমাবেশে ঘোষিত ১০ দফা দাবি হচ্ছে-

১. নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে জাতীয় সংসদ ভেঙে দিতে হবে।

২. সব নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের মতামত নিয়ে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠন করতে হবে।

৩. বর্তমান নির্বাচন কমিশন বাতিল করে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে।

8. তফসিল ঘোষণার পর থেকে নির্বাচিত সরকার ক্ষমতা গ্রহণের আগ পর্যন্ত সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করতে হবে এবং নির্বাচনের দিন সশস্ত্র বাহিনীর হাতে বিচারিক ক্ষমতা দিতে হবে।

৫. নির্বাচনে সব দলের জন্যে সমান সুযোগ তৈরি করতে হবে। রেডিও, টিভিসহ সব সরকারি-বেসরকারি গণমাধ্যমে সবাইকে সমান সুযোগ দিতে হবে এবং রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে সব ধরনের হয়রানি বন্ধ করতে হবে।

৬. দুর্নীতিবাজদের নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষণা করতে হবে।

৭. নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার বন্ধ রাখতে হবে।

৮. রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, জাতীয় সংহতি ও কার্যকর সংসদ প্রতিষ্ঠায় জাতীয় নির্বাচনে সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্ব পদ্ধতির নির্বাচন ব্যবস্থা প্রবর্তন করতে হবে।

৯. কোটা সংস্কার অন্দোলন এবং নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে গ্রেফতার ছাত্রদের মুক্তি এবং তাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা সব মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

১০. গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রণের উদ্দেশ্যে প্রণীত বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করতে হবে।

বাদ জুমা পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে সমাবেশ শুরু হয়ে শেষ হয় বিকাল ৫ টায়। সমাবেশ শেষে সংক্ষিপ্ত মুনাজাত করেন মুফতি সৈয়দ রেজাউল করীম।

Comment

Share.

Leave A Reply