স্মার্ট যুগের স্মার্ট হেলমেট জার্ভিস

0

অ্যাভেঞ্জার্সের দৌলতে আয়রন ম্যানকে চেনে না, এমন মানুষের সংখ্যা খুবই কম। তার ব্যক্তিগত ডিজিটাল অ্যাসিস্ট্যান্ট জার্ভিস, অত্যন্ত আধুনিক, প্রায় মানুষ সমান ক্ষমতা তার বিচার বিবেচনার, সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রেও।

টনি স্টার্ক একবার আয়রন ম্যানের কাঠামোর মধ্যে ঢুকে গেলে এই জার্ভিসই তার ভরসা, শত্রুদের উপস্থিতি থেকে শ্যুটের গণ্ডগোল, সব খবর এই জার্ভিসের মাধমেই পেতে হয় স্টার্ককে।

প্রতিদিন সাধারণ মানুষের জীবনে এরকম ‘জার্ভিস’ থাকলে না জানি কত সুবিধে হত, কত পরিশ্রম কমে যেত। এই চিন্তাধারা থেকেই যেমন স্মার্ট হোম বা গুগল- অ্যামাজনের স্মার্ট অ্যাসিস্টান্ট এখন ঘরে ঘরে পৌছে যাচ্ছে, তাইওয়ানের এক কোম্পানি বানিয়ে ফেলেছে স্মার্ট হেলমেট। তারও নাম জার্ভিস!

এই জার্ভিস হেলমেট দেখতে একেবারে সাধারণ হেলমেটের মতো। যার কাজ চালককে সুরক্ষিত রাখা। এই হেলমেটে রয়েছে ৩৬০ ডিগ্রি ক্যামেরা। ফলে আপনার সামনে পিছনে ওপরে কী হতে চলেছে সবটাই ক্যামেরায় ধরা পরবে স্মার্ট হেলমেট।

ফলে খুব সহজেই আপনার স্মার্ট ফোনের সঙ্গে সেটি সংযোগ করতে পারবেন। সব থেকে দারুন যে বৈশিষ্ট্য এখানে রয়েছে তা হল ডিসপ্লে। বিশদে না জানা গেলেও মোটামুটি ভাবে যা জানা গিয়েছে তা হল, হেলমেটের সামনের কাচে থাকবে এই ট্রান্সপারেন্ট স্ক্রিন।

ফলে আপনি সাধারণত হেলমেট পরে সামনে যে ভাবে দেখতে পান, এখানেও তাই পাবেন। সঙ্গে থাকবে অতিরিক্ত কিছু তথ্য। সময়, আবহাওয়া, কারও ফোন এলে তার নাম-ফোন নম্বর, এর সঙ্গে গাড়ি চালানোর সুবিধের জন্যে কত স্পিড, কোন দিকে যেতে হবে এবং সেই অঞ্চল বা রাস্তার স্পিড লিমিট কত, সব আপনি দেখতে পাবেন।

ভয়েস কম্যান্ড রয়েছে, ফলে আপনার শুধু বলার অপেক্ষা, বললেই এই স্ক্রিন হাজির হবে বা মিলিয়ে যাবে আপনার হেলমেট থেকে।

কার্বন ফাইবারের তৈরি এই হেলমেট যথেষ্ট মজবুত। ৩৬০ ডিগ্রি ক্যামেরা থাকার দরুন গাড়ি চালানোর সময় চারপাশের ঘটনা সবটাই মেমরিতে থেকে যাবে।

ফলে কোনও কারণে তথ্য প্রমাণের দরকার পড়লে শুধু সময় ধরে ভিডিও খোঁজার অপেক্ষা মাত্র। ক্যামেরার কোয়ালিটি কী রকম হবে, তা এখনও স্পষ্ট জানা না গেলেও সাধারণ ড্যাশ ক্যামেরার মতো, অর্থাৎ ২কে রেজোলিউশনের হবে বলে মনে করা হচ্ছে। স্টোরেজ ১৬ জিবির হলেও ২৫৬ জিবি অবধি বাড়ানো যেতে পারে মেমরি কার্ড দিয়ে।

ব্লুটুথ অথবা ওয়াইফাই, দু’রকম ভাবেই সংযোগ করতে পারবেন আপনার ফোনের সঙ্গে। একবার চার্জ দেওয়ার পর টানা ৪ ঘণ্টা ব্যবহার করতে পারবেন, ভয়েস কম্যান্ড ব্যবহার করে গান চালানো থেকে দিনের বিশেষ খবর অথবা সারা দিনের আপনার প্ল্যানিং– সব করতে পারবেন, অ্যামাজনের অ্যালেক্সার সঙ্গে।

স্বাভাবিক ভাবেই স্মার্ট হেলমেটের দাম খুব কম নয়। এর দাম বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৯৫ হাজার টাকা। তবে, এখনই যদি তাদের ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের নাম নথিভুক্ত করান, পেয়ে যাবেন ৩৫ শতাংশ ডিসকাউন্ট। ২০১৯ এর মাঝামাঝি বাজারে চলে আসার কথা, দেখা যাক আগামী দিনে এই হেলমেট চালকের জন্যে কতটা প্রয়োজনীয় হয়ে ওঠে।

Comment

Share.

Leave A Reply