জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার মানুষের সঙ্গে তামাশা

0

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার সম্পর্কে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেছেন, ‘ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার দেশের মানুষের সঙ্গে তামাশা ছাড়া আর কিছু নয়।’

সোমবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলটির এক সংবাদ সম্মেলন থেকে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টেরইশতেহার দেশের মানুষের সঙ্গে তামাশা করার জন্য। এটা বিশ্বাসযোগ্য নয়। এটা তাদের ভোটের রাজনীতির অপকৌশল৷ দেশের মানুষকে বিভ্রান্ত করতে তারা নানা ধরনের বক্তব্য দিচ্ছে।’

ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের প্রক্রিয়া চলমান রাখার ঘোষণার প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘যারা যুদ্ধাপরাধীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছে। যুদ্ধাপরাধীদের ২৩ উত্তরসূরিকে নির্বাচনের সুযোগ দিচ্ছে। তারা আবার যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের কথা বলে। এটা জাতির সঙ্গে প্রতারণা ছাড়া কিছুই নয়।’

ঐক্যফ্রন্টের ‘দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার ঘোষণার’ সমালোচনা করেন এই আওয়ামী লীগ নেতা। বলেন, ‘বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত। বিএনপি ক্ষমতায় থেকে হাওয়া ভবনকে দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত করেছিল। দলটির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এতিমের টাকা আত্মসাৎ করে কারাগারে আছেন। ঐক্যফ্রন্টের দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়ার ঘোষণা ভূতের মুখে রাম নাম ছাড়া আর কিছু নয়।’

আব্দুর রহমান বলেন, ‘একটি বিশেষ গোষ্ঠী এখনও নির্বাচন বানচাল করতে নানা ধরনের চক্রান্ত- ষড়যন্ত্র করেছে। ড. কামালের নির্বাচন না হওয়ার আশঙ্কার বিষয়টি আরও পরিষ্কার হয়েছে। দেশের মানুষ ও ভোটাররা নির্বাচনে জন্য প্রস্তুত। দেশের মানুষ যেকোনো চক্রান্ত রুখে দেবে। দেশের উন্নয়নের কথা চিন্তা করে জনগণ বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় দেখতে চায়।’

এ সময় একটি বিশেষ গোষ্ঠী বিভিন্ন জায়গায় বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটিয়ে দোষ আওয়ামী লীগের ওপর চাপানোর চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন দলটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বি এম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহউদ্দিন নাছিম, তথ্য-গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আফজাল হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুর সবুর প্রমুখ।

Comment

Share.

Leave A Reply