কাতারে কুরআন প্রতিযোগিতায় সিলেটের সায়্যিদ ১ম

0

কওমিকণ্ঠ : টানা কয়েক বছর ধরে আন্তর্জাতিক হিফজুল কোরআন প্রতিযোগীতাগুলোয় বাংলাদেশের শিশু ও কিশোর হাফেজরা সেরা নির্বাচিত থাকছেন। প্রতিবারই তাদের জাদুকরি তেলাওয়াতে মুগ্ধ হচ্ছে মুসলিম বিশ্ব। সারা বিশ্বেই বাংলাদেশের নামকে সমুজ্জ্বল করে তুলছেন এই কুরআনের বাহকরা।

বিগত বছরগুলোর মতোই এবারো বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। সিলেটের কিশোর হাফেজ সাইয়্যেদ ইসলাম মোহাম্মদ। কাতারের দোহায় অনুষ্ঠিত ২৫তম ‘শেখ জাসিম বিন মোহাম্মদ বিন থানি হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায়’ প্রথম স্থান অধিকার করেছে বাংলাদেশের এই কিশোর।

কুরআন মাজীদ ইসলাম ধর্মের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ, যা আল্লাহর দৈববাণী বলে মুসলমানরা বিশ্বাস করে থাকেন। কুরআন মাজীদ এটি আরবী সাহিত্যের সর্বোৎকৃষ্ট কর্ম হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকে। কুরআনকে প্রথমে অধ্যায়ে (আরবীতে সূরা) ভাগ করা হয় এবং অধ্যায়গুলো (সূরা) আয়াতে বিভক্ত করা হয়েছে।

মুসলমানদের বিশ্বাসমতে আল্লাহ ফেরেশতা জিব্রাইল এর মাধ্যমে ইসলামিক নবী মুহাম্মাদ (সঃ) এর কাছে মৌখিকভাবে কুরআনের আয়াতগুলো অবতীর্ণ করেন,দীর্ঘ তেইশ বছর ধরে সম্পূর্ণ কুরআন অবতীর্ণ হয়। কুরআনের প্রথম আয়াত অবতীর্ণ হয় ৬০৯ খ্রিস্টাব্দের ২২ ডিসেম্বর যখন মুহাম্মাদের বয়স ৪০ বছর।

এবং অবতরণ শেষ হয় মুহাম্মাদের তিরোধানের বছর অর্থাৎ ৬৩২ খ্রিস্টাব্দে। মুসলমানরা বিশ্বাস করে থাকেন কুরআন হচ্ছে মুহাম্মাদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অলৌকিক ঘটনা যা তার নবুয়তের প্রমাণস্বরূপ এবং ঐশ্বরিক বার্তা প্রেরণের ধারাবাহিক প্রক্রিয়ার চূড়ান্ত পর্যায় যা আদম থেকে শুরু হয়ে মুহাম্মাদের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

তবে সুফিবাদের অনুসারীরা বিশ্বাস করে থাকেন মুহাম্মাদের সকল কর্মকান্ডে উম্মতের কাছে বোধগম্য করে তোলার জন্যই কুরআন অবতীর্ণ করা হয়। এভাই কিশোরেরা কেউ তিন বছর কেউ বা এক মাসে কুরআন মুখস্ত করে পেলে। এভাই সিলেটের সাইয়্যেদ মুহাম্মদ পুরো কুরআন মুখস্ত করে কাতারে প্রথমস্থান হয়।

সাইয়্যেদ মুহাম্মদ সিলেটের সদর উপজেলার লাখাউরার বাসিন্দা মুহাম্মদ আব্দুল আসলামের ছেলে।

কাতারের ধর্মমন্ত্রণালয় আয়োজিত এ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান গত মঙ্গলবার (০৩ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে কাতারের ধর্মমন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

৩০ পারা বিভাগে প্রথম স্থান অধিকারী বাংলাদেশি কিশোর হাফেজ সাইয়্যেদ ইসলাম মুহাম্মদ ১ লাখ রিয়ালের (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২৪ লাখ টাকা) চেক ও আন্তর্জাতিক সনদসহ অন্যান্য পুরস্কারসামগ্রী লাভ করে।আল্লাহ আমাদের সবাইকে কুরআন মুখস্ত করার শক্তি দান করুক

Comment

Share.

Leave A Reply