সৈয়দ তামিম’র কবিতা- ত্যাগের স্বাধীনতা

0
মুজিবীয় হুংকারে-
অগ্নির ফুলঝুরি।
শত্রু মোকাবেলায়-
যতো যাক খুন ঝোরি।
শুন্যহস্তে নয়-
যাই আছে তাই লয়ে,
হও আগুয়ান আবাল বনিতা-
নাও জোয়ান।
এই জমিনে ঘাতকের সিংহাসন-
চূর্ণ কর,
আপন মাটিতে প্রতিটি ঘাটিতে-
দূর্গ গড়ো।
অনাচার অবিচার-
হবে অবসান,
আমরা যে ভীরু নই-
হতে পারি কোরবান।
আমরা ডরি না
আমরা- করি না সংশয়,
বীরত্বে গাঁথা জাতির-
তামাম হোক হোক যে ক্ষয়।
মুক্তির হাক এলো-
কতই না জান গেলো।
হবুজখানায় কত মাস দিন-
গুজরে গেলো।
এক নিশিতে অদিব্য অদয়-
হানাদার দল আসে,
দানিশবন্দর রুহু ছিনে সব-
খুনে খুনে ভাসে।
বঙ্গভুমিতে অগ্নিগোলা-
গারোদ করিলোরে।
তেজোদীপ্ত দমালের দল-
কমর বাধিলোরে।
নির্দয় সেনা মা বোনেরে-
অনম্বর করে হায়,
আড়ংগঞ্জে আতশলিলায়
সব জ্বলে ছাই।
মুক্তির লাগি মোরা-
তাগবাগে শার্দল।
ফানাফিল্লা গারদ করিবো-
ট্যাংকের নল।
ব্যাথিতো গায়ে কি আর ব্যাথা-
বাকি বিদায়ের,
তখন শ্বাস লড়ে
নিরলস কাছে বিজয়ের।
যতো গোলা তোর-
সিনাপুরে মোর যাক তবে।
তবু লড়াকু লড়েই যাবো-
অবনীর জয় হবে।
না্বই দেখিলাম স্বাধীন ভূমি-
তোদের পরাজয়ে।
বিজয়ী বেশে ঘুমাবো আমি-
কোটি কোটি হৃদয়ে।

Comment

Share.

Leave A Reply