আর নয় লেজুড়বৃত্তি : এবার ঘুরে দাঁড়াই

0
সৈয়দ শামছুল হুদা ::

ইসলামপন্থীদের ঘুরে দাঁড়ানোর সময় এসে গেছে। ড. কামালসহ বিএনপিকে ছুঁড়ে ফেলারও সময় হয়ে গেছে। বিএনপির জোটে থাকা না থাকার কোন ঘোষণা কোন দলের দেওয়ার দরকার নেই। শুধূ বিএনপিকে কঠিনভাবে এড়িয়ে চলুন। সর্বত্র এড়িয়ে চলুন। ইসলামপন্থীদের ভালোবাসা এবং ভারতের আগ্রাসী মানসিকতার প্রতিবাদী শক্তির সমর্থনই বিএনপির শক্তির উৎস। ফখরুলের বিএনপি এ দুটি নীতি থেকেই সরে গেছে। তারা এখন ভারত বান্ধব হওয়ার চেষ্টা করছে। সে জন্য দেদারছে বামদের কাছে টানছে। ইসলামপন্থীদের উপেক্ষা করছে।

আল্লামা আহমদ শফী দা.বা. এর বক্তব্যে যে বিএনপি বিব্রতবোধ করে, এমন বিএনপির সাথে আর কোন সখ্যতারও প্রয়োজন নেই। নেই কোন রাজনৈতিক ঐক্যের প্রয়োজনীয়তাও। আওয়ামীলীগের চেয়ে অধিক সেক্যুলার এবং ভারতঘেষা না হওয়া পর্যন্ত বিএনপিকে কোন দিনই প্রভুরা ক্ষমতায় আনবে না। সুতরাং তারা প্র্ভুদের কাছে পরীক্ষা দিতে থাক। যে বিএনপি শহীদ জিয়ার আদর্শ থেকে সরে গেছে, যে বিএনপিকে দেখলাম তার নির্বাচনী প্যাডে বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম পর্যন্ত তুলে দিয়েছে, সেই বিএনপি খালেদা জিয়ার বিএনপিও নয়। এটা চরম বামদিকে ঝুঁকে যাওয়া নতুন বিএনপি।

আরও একটি বিষয় পরিস্কার, সেটা হলো এদেশে যেহেতু জনগণের ভোটে ক্ষমতার পরিবর্তন হওয়ার আর কোন সুযোগ নেই, তাই বিএনপির পেছনে ইসলামপন্থীদের পড়ে থাকারও কোন প্রয়োজন নেই। এবার ইসলামী আদর্শের সকল শক্তিকে আপন বলয় গড়ে তুলতে হবে।

বর্তমান সময়ে হেফাজতে ইসলাম যে চেতনায় সকল দলের মোহনায় পরিণত হয়েছিল, এমন কিছু ইস্যু দাঁড় করানো দরকার যেগুলোতে সকলেরই নৈতিক সমর্থন আছে। সবগুলো ইসলামী দলের যে মৌলিক দাবী, তার আলোকে মূল কিছু দফাকে সামনে রেখে ইসলামীদলগুলো যদি ঐক্য গড়ে তুলে মাঠে নামতে পারে, তাহলে রাষ্ট্রের মৌলিক পরিবর্তনে তারা বিশেষ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।

মৌলিক ইস্যুগুলোর মধ্যে মানুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠা, বাকস্বাধীনতা ফিরিয়ে আনা, জনগণের মতামতের ভিত্তিতে সরকার গঠনে বর্তমান সরকারকে বাধ্য করা, দুর্নীতির লাগাম টেনে ধরা, নারীদেরকে চরম নিরাপত্তাহীনতা থেকে উদ্ধার করা, সমাজের প্রতিটি স্তরে যে নোংরামি ছড়িয়ে পড়েছে তা প্রতিরোধে সামাজিক শক্তিকে প্রতিষ্ঠিত করা, সামাজিক অপরাধ বন্ধ করা, সমাজের ভালো মানুষদের বর্তমানে যেভাবে কোণঠাসা করে রাখা হয়েছে তা থেকে জাতিকে উদ্ধার করা, রাষ্ট্রের সকল স্তরে ইনসাফ প্রতিষ্ঠা করা ইত্যাদি ইস্যুগুলো হতে পারে ইসলামপন্থীদের ঐক্যের মূলসূত্র।

আর খোচাখুচি নয়, চুলকিয়ে ঘা বানানো নয়, বরং দেশের পরিস্থিতি, বাস্তবতা, উম্মাহর অবস্থা চিন্তা করে সকলেই এক হোন। কোন দল, ব্যক্তির প্রতি অন্ধ অনুকরণ ত্যাগ করুন।ইসলামের স্বার্থই সবার আগে সেটা নিশ্চিত করুন। তাহলেই সম্ভব কিছু করা।

Comment

Share.

Leave A Reply